চকরিয়ায় অবাধ্য পুত্রের প্রহারে আহত বয়োবৃদ্ধ পিতা


 

চকরিয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়ায় বখাটে ও অবাধ্য পুত্রের প্রহারে গুরুতর আহতের শিকার হয়েছেন ৯০ বছর বয়সের বৃদ্ধ পিতা সব্বির আহমদ। অবাধ্য ওই পুত্রের বিরুদ্ধে চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করায় বয়োবৃদ্ধ পিতার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে বেদম প্রহার করে। স্থানীয় ও পরিবারের অপরাপর সদস্যরা এগিয়ে এসে বৃদ্ধ সব্বির আহমদকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শুক্রবার(১৮ আগস্ট ) রাতে চকরিয়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ লক্ষ্যারচর ফুলতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, চকরিয়া পৌরসভার দক্ষিণ লক্ষ্যারচর ফুলতলা স্টেশনস্থ মৃত ছিদ্দিক আহমদের পুত্র বয়োবৃদ্ধ সব্বির আহমদের ছয় পুত্র ও এক কন্যা সন্তান রয়েছে।

পুত্রদ্বয় বিবাহ করার পর থেকে আলাদা ভাবে জীবন যাপন করতেন। পরিবারের উন্নতির জন্য বৃদ্ধ পিতা তার মেঝো পুত্র নুরুল আবচারকে জায়গা-জমি, মামলা মোকাদ্দমা চালানো ও সহায় সম্পত্তি দেখভাল করার দায়িত্ব দেন। এরই জের ধরে তার বখাটে ও অবাধ্য ছোট পুত্র মো. আলমগীর স্থাবর-অস্থাবর জায়গা-জমি জোরপূর্বক ভাবে লেখে দেয়ার জন্য বৃদ্ধা পিতাকে চাপ সৃষ্টি করে আসছে।

এতে পিতা, পুত্রের কথায় সাড়া না দেয়ার কারণে অপারাপর ৫ ভাই ও বোনের যোগসাজসে বয়োবৃদ্ধ পিতাকে গত ৮ আগস্ট বেদম প্রহার করেন। এ ঘটানায় পিতা বাদী হয়ে পুত্র আলমগীরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে আদালতে সিআর-১০১৮/১৭ মামলা দায়ের করেন।

আহত বয়োবৃদ্ধ সব্বির আহমদ কান্না জড়িতকণ্ঠে জানান, পুত্রের অধিকার রক্ষা করতে না পারায় আমার অবাধ্যপুত্র আলমগীর ও তার অপর ৪ ভাইয়ের কুপরামর্শে তাকে বার বার মারধর করে আসছে। সর্বশেষ গত ১৮ আগস্ট রাতেও তাকে বেদম প্রহার করেছে অবাধ্য পুত্র আলমগীর। এ ঘটনা নিয়ে অবাধ্য পুত্রের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ পিতা শুক্রবার রাতে চকরিয়া থানায় এসডিআর-১০৪৫/১৭ দায়ের করেন।

এ ছাড়াও অবাধ্য পুত্র ও তার অপরাপর ভাইয়েরা আমাকে মেরে ফেলার ও প্রতিনিয়ত নানা হুমকি ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে বয়োবৃদ্ধ সব্বির আহমদ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পুত্রের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ পিতার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্তপূর্বক অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *