চকরিয়ায় অপহরণের সাতঘন্টা পর ছাত্র উদ্ধার


 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় কথিত অপহরণের সাত ঘন্টা পর মহেশখালীর এক যুবককে পাহাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এর আগে অপহরণ চক্রের সদস্যরা ওই যুবকের কাছ থেকে নগদ এক লক্ষ টাকা ও দুটি মোবাইল সেট হাতিয়ে নেয়।এরপর তাকে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে চকরিয়ার ফাঁসিয়াখালীর হাসেরদিঘী এলাকায় জঙ্গলের ভেতর ফেলে পালিয়ে যায় অপহরণ চক্রের সদস্যরা।

তবে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে তথ্য পেয়ে পুলিশ ওই যুবককে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে বুধবার রাত বারোটার দিকে। উদ্ধারকৃত যুবকের নাম আবদুর রশিদ (২০)। সে কক্সবাজার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এর ছাত্র এবং মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর বারই পাড়ার নুরুল ইসলামের পুত্র।

চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) অপু বড়ুয়া জানান, মহেশখালীর শাপলাপুরের আবদুর রশিদ কক্সবাজার পলিটেকনিক কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। কলেজে যাতায়াতের সুবিধার্থে ওই ছাত্র চকরিয়া পৌরসভার ভরামুহুরীর উকিলপাড়াস্থ ভগ্নিপতি আজিজুল হকের বাসায় থাকতো।

বুধবার বেলা তিনটার দিকে ছাত্র রশিদ বোনের কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা নিয়ে চকরিয়ার বদরখালীস্থ ফুফা দেলোয়ার হোসেনকে দিতে যাচ্ছিল। ভরামুহুরী থেকে রশিদ টমটমে করে চিরিঙ্গা স্টেশনে আসে বদরখালী যাওয়ার জন্য। কিন্তু চিরিঙ্গা শহরে নামার পর একদল অপহরণকারী রশিদকে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করলে সঙ্গে সঙ্গে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এরপর তাকে নিয়ে যাওয়া হয় নির্জন স্থানে।

উদ্ধারের পর ভুক্তভোগী রশিদ জানায়, তার কাছে থাকা নগদ প্রায় এক লক্ষ টাকা ও দুটি মোবাইল সেট হাতিয়ে নেওয়ার জন্য অপহরণকারী চক্র আমাকে অজ্ঞান করে নিয়ে গিয়ে সর্বস্ব কেড়ে নেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *