গুইমারা উপজেলা নির্বাচনে ঘুরে দাঁড়াতে চায় ইউপিডিএফ


22.02.2017_Guimara Election NEWS-UPDF

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

গুইমারা উপজেলা নির্বাচনের মনোনয়ন পত্যাহার ও প্রতীক বরাদ্ধের পর জমে উঠতে শুরু করেছে নির্বাচনী ময়দান। তিনটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এ উপজেলায় জয় পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে সম্ভাব্য প্রার্থীরা। সরকারী দল আওয়ামী লীগ প্রার্থী মেমং মারমা ও দেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপির প্রার্থী মোহাম্মদ ইউছুফের পাশাপাশি সমানতালে মাঠ চষে বেড়াচ্ছে পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী উশেপ্রু মারমা।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি গভীর রাতে নিরাপত্তা বাহিনী লক্ষীছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমাকে তার বাসভবন থেকে পাঁচ রাউন্ড গুলি ভর্তি আমেরিকার তৈরি একটি ফাইভ স্টার পিস্তলসহ গ্রেফতারের দুই মাস না পেরুতেই গেল ১০ ফ্রেব্রুয়ারি গভীর রাতে ইউপিডিএফ নেতা প্রদীপন খীসার খাগড়াছড়ির বাসা থেকে প্রায় ৮০ লাখ টাকা সহ গুরুত্বপূর্ণ দলিলাদি উদ্ধারের ঘটনায় অনেকটাই কোনঠাসা হয়ে পড়েছে পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-ইউপিডিএফ।

সংগঠনটির অব্যাহত চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডসহ সাম্প্রতিক সময়ে দলটির শীর্ষ দুই নেতার বাসায় নিরাপত্তাবাহিনীর অভিযানে অস্ত্র ও চাঁদাবাজির অর্থ উদ্ধারের ঘটনায় মাঠ পর্যায়ে তাদের কর্মকাণ্ড যখন সাধারণ মানুষের কাছে  প্রশ্নবিদ্ধ তখন সদ্য ঘোষিত গুইমারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঘুরে দাঁড়াতে চায় উগ্রসাম্প্রদায়িক এ সংগঠনটি। গুইমারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে টার্গেট করে ইতিমধ্যে সংগঠনটি কোমড় বেঁধে মাঠে নেমেছে।

গুইমারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করে দলটির সমর্থন নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে নেমেছেন হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সদ্য সাবেক চেয়ারম্যান উশেপ্রু মারমা। বয়সে তরুন এ নেতা ইতিমধ্যে লক্ষীছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমাকে গ্রেফতারের পর তার মুক্তির দাবিতে অনেকটাই সরব ছিল। আর এ কারণেই তার প্রতি দলটিও আস্থাশীল বলে অসমর্থিত একাধিক সূত্রের সাথে কথা বলে জানা গেছে।

গুইমারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই তৃতীয়াংশ উপজাতীয় ভোটারকে লক্ষ্য করে আওয়ামী লীগ-বিএনপি’র দুই শক্তিশালী প্রার্থীকে পেছনে ফেলে জয় পেতে মরিয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী উশেপ্রু মারমা। ইতিমধ্যে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাহলাপ্রু চৌধুরীর পদত্যাগের মধ্য দিয়ে উশেপ্রু মারমা অনেকটাই খোশ মেজাজে রয়েছেন বলেও জানা গেছে। দুর্গম পাহাড়ি জনপদের ভোটাররাই তার টার্গেট হতে পারে এমনটাই মনে করছেন সচেতন মহল।

সাধারণ ভোটারদের অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জয় পাওয়ার দিন এখন আর নেই উল্লেখ করে গুইমারার সচেতন ভোটারদের অনেকেই বলেন ভয়ভীতি বা অস্ত্রের জোরে জয়ের যে স্বপ্ন দেখছে ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী উশেপ্রু মারমা ৬মার্চের নির্বাচনে ব্যালটের কাছে হেরে গেলে আশ্চর্য হওয়ার তেমন কিছু থাকবেনা।

প্রসঙ্গত, গুইমারা সদর ইউনিয়নে ৯ হাজার ৫’শ ৫৬জন, হাফছড়ি ইউনিয়নে ১৩হাজার ২’শ ১৮জন এবং সিন্দুকছড়ি ইউনিয়নে ৪ হাজার ৬’শ ৭জন ভোটার ৬মার্চ অনুষ্ঠিতব্য গুইমারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তাদের পছন্দের প্রার্থী নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *