গুইমারায় বাঙালী ব্যবসায়ীর দোকান থেকে উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের বিপুল পরিমাণ সামরিক পোশাক উদ্ধার


%e0%a7%9c%e0%a7%9c%e0%a7%9c%e0%a7%9c

নিজস্ব প্রতিবেদক:

খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা থেকে ৮৭ পিস আমদানী করা সামরিক পোশাক উদ্ধার করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। শনিবার গুইমারা বাজার থেকে নিরাপত্তা বাহিনী পরিচালিত এক অভিযানে এই বিপুল পরিমাণ পোশাক উদ্ধার করা হয়।

নিরাপত্তা বাহিনী সূত্রগুলো পার্বত্যনিউজকে জানায়, গুইমারা বাজারের এক ব্যবসায়ী শীতের গরম কাপড়ের আড়ালে স্থানীয় সন্ত্রাসীদের কাছে সামরিক পোশাক বিক্রি করছে এমন খবরের ভিত্তিতে নিরাপত্তা বাহিনী ফাঁদ পাতে। এই ফাঁদে পা দিয়ে ব্যবসায়ীও বিপুল পরিমাণ সামরিক পোশাক আমদানী করে। এ খবর পেয়ে নিরাপত্তা বাহিনী তার শীতের গরম কাপড়ের গাঁইটের ভেতর তল্লাশী চালিয়ে এই বিপুল পরিমাণ সামরিক পোশাক উদ্ধার করে।

উদ্ধার করা পোশাকের মধ্যে রয়েছে ৫৭ পিস শার্ট ও ৩০ পিস প্যান্ট। এসময় মইনুদ্দীন(৩৫) নামের সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীকেও আটক করে নিরাপত্তা বাহিনী। তার বাড়ি গুইমারা। সে স্থানীয় আবুল হোসেনের পুত্র।

জিজ্ঞাসাবাদের আটক ব্যবসায়ী জানান, এগুলো তিনি চট্টগ্রাম থেকে কিনে এনেছেন। ইতোপূর্বে আরো বেশ কিছু ইউনিফর্ম কিনে এনে স্থানীয় উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের কাছে বিক্রি করেছেন। তাদের চাহিদার ভিত্তিতে আরো ইউনিফর্ম এনেছিলেন। তবে এগুলো গরম কাপড় হিসাবে এনেছেন তিনি। এগুলো যে সামরিক পোশাক তা তার জানা ছিল না।

স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, বিভিন্ন লেবেল দেখে ধারণা করা হচ্ছে পোশাকগুলো চায়নায় তৈরি। এগুলো ভারত ও মিয়ানমারের বিদ্রোহী গোষ্ঠী ব্যবহার করে থাকে। তবে বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফের সশস্ত্র শাখাও এই পোশাক ব্যবহার করে থাকে।

তারা ধারণা করেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের একটি উপজাতীয় সন্ত্রাসী গ্রুপ আটক ব্যবসায়ীকে দিয়ে এই সামরিক পোশাক আমদানী করিয়েছেন। তবে বিষয়টি যাতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নজরের বাইরে থাকে তাই বাঙালী ব্যবসায়ীকে ব্যবহার করা হয়েছে।

পোশাক আমদানীর সম্পূর্ন নেটওয়ার্ক জানতে আটক ব্যবসায়ীকে উচ্চ পর্যায়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *