গুইমারায় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে যুবক আটক


গুইমারা প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার পশ্চিম বড়পিলাক এর কামাল শরীফের মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী কহিনুর আক্তার শারমিন (১৪) কে ধর্ষণের দায়ে এক যুবককে আটক করেছে গুইমারা থানা পুলিশ। আটককৃত ধর্ষণকারী হলেন একই গ্রামের কাউছার মিযার ছেলে আজাদ (১৯)।  অপর আসামি মফিজুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানাযায় ।

জানাযায়, গত ৭ অক্টোবর পশ্চিম বড়পিলাকের একটি পরিত্যক্ত ঘরে নাবালিকা কোহিনুর আক্তার শারমিনকে ধর্ষণকারী আজাদ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সারারাত ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ২৭ অক্টোবর আবারও ধর্ষণ করার সময় স্থানীয় লোকজন দেখে বাদী কামাল শরিফকে জানায়।

কামাল শরিফ বিষয়টি অবগত হওয়ার পরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মফিজুল ইসলামকে জানালে সে বিষয়টি নিষ্পত্তি করে দেওয়ার কথা বলে মামলার মেরিট নষ্ট করার জন্য এক সপ্তাহ কালক্ষেপন করেন। পরক্ষণে ধর্ষিতার বাবা কামাল শরিফ বাদী হয়ে গুইমারা থানায় বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) সন্ধ্যায় দুইজনকে আসামি করে  মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯এর ১/৩০ ধারা মতে  গুইমারা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাহাদাত হোসেন টিটু মামলাটি আমলে নিয়ে ১নং বিবাদী আজাদকে আটক করেন।

এ বিষয়ে মফিজুল ইসলাম বলেন, ধর্ষিতা এবং ধর্ষণকারী উভয়ের পিতা প্রতিবন্ধী হওয়ায় আমি চেয়ে ছিলাম আইন অনুযায়ী বিষয়টি সামাজিক ভাবে নিষ্পত্তি করতে এখন এটাই আমার অপরাধ।

এ বিষয়ে গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহাদাত হোসেন টিটু বলেন, এমন বিষয় আছে যেগুলো থানা অবগত ছাড়া সামাজিক ভাবে নিষ্পত্তি করা আইন অনুযায়ী অপরাধ। মফিজুল ইসলাম ধর্ষণের আলামত নষ্ট করার জন্য, বিবাদীকে সহযোগিতা মূলক বিষয়টিকে কালক্ষেপন করেছেন গুইমারা থানাকে না জানিয়ে। এজন্য তার বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *