খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কে ইউপিডিএফ(প্রসীত) গ্রুপের অবরোধ


নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

পানছড়ি বাজারের পর খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কও অচল করে দিয়েছে ইউপিডিএফ(প্রসীত) গ্রুপ।

সোমবার(১৩ আগস্ট) বিকাল থেকে ওই সড়কের অন্তত চারটি পয়েন্টে রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে সড়কটি অবরোধ করে রেখেছে ইউপিডিএফ’র কয়েকশ নারী কর্মী। তাদের অভিযোগ জেএসএস(এমএন) গ্রুপের লোকজন চার গ্রামবাসীকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে।

ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের প্রধান সংগঠক উজ্জ্বল স্মৃতি চাকমা এক বিবৃতিতে দাবি করেন, খাগড়াছড়ির ভাইবোনছড়া ইউনিয়েনের দেওয়ানপাড়ায় অবস্থানরত সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেয়ার পর ফেরার পথে জেলা শহরের মহাজন পাড়া এলাকা থেকে প্রতিনিধি দলের মধ্যে চারজনকে শহরের মহাজনপাড়ায় গাড়ি থেকে নামিয়ে আটকিয়ে রেখেছে জনসংহতি সমিতির সংস্কারবাদী গ্রুপের সদস্যরা।

অপহৃতরা হচ্ছে, সিন্ধুরায় ত্রিপুরা (৩৫), তকায় ত্রিপুরা (৩০), মশা ত্রিপুরা (৩২) ও সুকেন্দ্র ত্রিপুরা (৩৮)। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং আটককৃতদের উদ্ধারে তড়িৎ ও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানান।

একই দাবিতে সোমবার বিকালে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইউপিডিএফ(প্রসীত) গ্রুপ সমর্থিত বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা শাখা। স্বনির্ভরস্থ বাজার ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর কার্যালয় সামনে থেকে বের হয়ে উপজেলা পরিষদ হয়ে স্বনির্ভরে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পিসিপি খাগড়াছড়ি শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুবফোরামে জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে জেএসএস(এমএন) গ্রুপের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা বলেন, এটি ইউপিডিএফ’র আভ্যন্তরীন কোন্দলের জেরে হতে হতে। এ ধরনের কোন ঘটনার সাথে তাদের সংগঠন জড়িত না।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহাদত হোসেন টিটু বলেন, শহরে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি।

এ দিকে সোমবার বিকাল ৪টার দিকে পানছড়ি-খাগড়াছড়ি সড়কের পেরাছড়া ও গিরিফুল ও শীব মন্দির এলাকায় ইউপিডিএফ(প্রসীত) গ্রুপের নারী কর্মীরা সড়কে গাছ ফেলে আগুন দিয়ে অবরোধ করে অপহৃতদের মুক্তির দাবিতে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহাদত হোসেন টিটু জানান, রাত ১০টার দিকে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়ক সচল হয়েছে।

আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের দ্বন্দ্ব, ইউপিডিএফ’র দাবিকৃত চাঁদা না দেওয়ায় গত ২০ মে থেকে খাগড়াছড়ির ঐতিহ্যবাহী পানছড়ি বাজার বর্জনের কারণে বিপাকে রয়েছে ওই বাজারে হাজারও ক্রেতা-বিক্রেতা।  কোটি টাকার লোকসানের মুখে পড়েছে বাজারে প্রায় ছয় শতাধিক ব্যবসায়ী। উৎপাদিত কাঁচা তরকারী বাজারে আনতে না পারায় তা পচে যাওয়া ক্ষতির মুখে পড়ে কৃষক। বাজারে কাঁচা তরকারী না আসায় দ্রব্যমূল্য উর্ধ্বগতির কারণে সাধারণ ক্রেতারা বিপাকে পড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *