parbattanews bangladesh

খাগড়াছড়িতে রবিবার ফের অবরোধ ডেকেছে ইউপিডিএফ

প্রথম দিন পুলিশের সাথে সংঘর্ষসহ ভাংচুর-আগুন, খাগড়াছড়িতে রবিবার ফের আবরোধ ডেকেছে ইউপিডিএফ

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

পুলিশের সাথে সংঘর্ষ, পুলিশের শর্টগানের গুলি, গাড়ি ভাংচুর, মোটরসাইকেলে আগুন ও চোরাগোপ্তা হামলাসহ বিচ্ছিন্ন  ঘটনার মধ্য দিয়ে শনিবার(৬জানুয়ারি) খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ’র ডাকে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ পালিত হয়েছে। আগামীকাল রবিবার(৭ জানুয়ারি) ফের খাগড়াছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ ডেকেছে ইউপিডিএফ।

শনিবার সন্ধায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র (ইউপিডিএফ) প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগে দায়িত্বপ্রাপ্ত  নিরন চাকমা সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে খাগড়াছড়িতে আরো ১ দিন অবরোধ বাড়ানো কথা জানিয়ে বলেন, ইউপিডিএফ’র অন্যতম সংগঠক মিঠুন চাকমাকে পরিকল্পিতভাবে নব্য মুখোশ বাহিনী দিয়ে হত্যা ও তাকে পার্টি অফিসে এনে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনে বাধাদানের প্রতিবাদে ঘোষিত ৬ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি জেলাব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ পালনকালে প্রশাসনের বিনা উস্কানিতে পিকেটারদের উপর টিয়ারসেল নিক্ষেপ ও খাগড়াছড়ি সদরের কয়েকটি জায়গায় পিকেটিং-এর ফাঁকা গুলি বর্ষণের প্রতিবাদে ৭ জানুয়ারি (রবিবার) খাগড়াছড়ি জেলায় আরো ১দিন সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে ইউপিডিএফ।

এদিকে শনিবার ইউপিডিএফ’র সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ চলাকালে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ, গাড়ি ভাংচুর, মোটরসাইকেলে আগুনসহ বিছিন্ন ঘটনা ঘটে। সকাল ৮টার দিকে জেলার রামগড়ের যৌথখামার এলাকায় একটি শান্তি পরিবহনের নৈশ কোচ (ঢাকা-মেট্রো ব ১৪-১৯৩৫) ও  ১১ মাইল এলাকায় ঢাকাগামী একটি কাঠ বোঝাই ট্রাক ( চট্ট-মেট্রো ট ১১-৩৩০৬) ভাংচুর করে পিকেটাররা।

অবরোধ চলাকালে সকাল ১০টার দিকে খাগড়াছড়ি চেঙ্গী ব্রিজ এলাকায় পুলিশ ও পিকেটারদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ তিন রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুড়ে পিকেটারদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পিকেটারদের গুলতির আঘাতে এএসই আবুল হোসেনসহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। একই স্থানে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ৩০/৪০ পিকেটার আচমকা রাস্তায় এসে গাড়ি ভাংচুরের চেষ্টা চালালে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। সকালে সাজেকগামী পর্যটকবাহী গাড়ির উপর পিকেটাররা কয়েক দফা ঢিল ছোঁড়ে।

অবরোধের কারণে আভ্যন্তরীন ও দুরপাল্লা সড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।  আকস্মিক সড়ক অবরোধের কারণে বেকায়দায় পড়েছে শত শত পর্যটক। অপ্রীতিকর ঘটনার শঙ্কায় নিরাপত্তা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

সকাল ১১টার দিকে আলুটিলায় চট্টগ্রাম থেকে খাগড়াছড়িগামী একটি চাউলবোঝাই পিকআপ (চট্ট-মেট্রো ট ১১-৬৭৩০) ভাংচুর করে পিকেটাররা। ভোরে গুইমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশের রাস্তায় অবরোধ সমর্থকরা রাস্তায় ব্যারিকেড দিলে নিরাপত্তারবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। এছাড়া বুদংপাড়ায় টায়ার জ্বালিয়ে, মানিকছড়িতে সেগুনগাছ কেটে রাস্তায় সেগুনগাছ দিয়ে ব্যারিকেড দিয়ে পিকেটিং করার চেষ্টা চালায় পিকেটাররা। পরে নিরাপত্তা বাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে পিকেটাররা পালিয়ে যায়। এ সময়

দুপুর দেড় টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের ৬ মাইল এলাকায় একটি মোটরসাইকেল জ্বালিয়ে দেয় পিকেটাররা। সকাল থেকে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কের বিভিন্ন স্থানে গাছ কেটে রাস্তায় ফেলে রাস্তা বন্ধ করে পিকেটাররা। পরে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তা সরিয়ে ফেলে।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান জানান, পিকেটাররা পাহাড়ের উপর খেকে চোরাগোপ্ত হামলা চালালেও নিরাপত্তাবাহিনীর প্রতিরোধের মুখে ব্যর্থ হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৩ জানুয়ারি দুপুরে খাগড়াছড়ি শহরের স্লুইস গেইট এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে পাহাড়ি আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র  (ইউপিডিএফ) কেন্দ্রীয় নেতা মিঠুন চাকমা নিহত হয়েছে। ইউপিডিএফ এ হত্যাকাণ্ডের জন্য ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিককে দায়ী করে আসছে। খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক আব্দুল হান্নান জানান, এখনো থানায় মামলা করেনি।

উল্লেখ, প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ ১৯ বছর পর গেল বছরের ১৫ নভেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রভাবশালী পাহাড়ি আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ ভেঙ্গে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক নামে আরো একটি সংগঠনের আত্মপ্রকাশ ঘটে। বিভক্তির পর সংগঠনটির কোন নেতাকর্মী প্রথম হত্যাকাণ্ডের শিকার হলেন।