খাগড়াছড়িতে চলছে দ্বিতীয় দিনের সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ


কেন্দ্রীয় নেতা মিঠুন চাকমার হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও পিকেটারদের উপর হামলার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ’র ডাকে দ্বিতীয় দিনের মত  সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ  চলছে, পুলিশ-পিকেটার ধাওয়া, বিভিন্ন স্থানে টমটম ভাংচুর ও আগুন।

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র (ইউপিডিএফ) ডাকে খাগড়াছড়িতে দ্বিতীয় দিনের মতো সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ চলছে। কেন্দ্রীয় নেতা মিঠুন চাকমার হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও শনিবারের অবরোধ চলাকালে পিকেটারদের উপর হামলার প্রতিবাদে সংগঠনটি এ সড়ক অবরোধের ডাক দেয়। টানা দুই দিনের অবরোধে পুরো খাগড়াছড়ি জেলা অচল হয়ে পড়েছে। আটকে পড়েছে সহস্রাধিক পর্যটক।

অবরোধের দ্বিতীয় দিনে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শহরের দক্ষিণ খবংপুড়িয়া এলাকায় পুলিশের সাথে  ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কে টমটম ভাংচুর ও আগুন দেওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অবরোধের কারণে আভ্যন্তরীন ও দুর পাল্লা সড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনার শঙ্কায় নিরাপত্তাবাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

শনিবার ইউপিডিএফ’র সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ চলাকালে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ, জেলার বিভিন্ন স্থানে গাড়ি ভাংচুর ও মোটরসাইকেলে আগুনসহ বিছিন্ন ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ শর্টগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

অবরোধের কারণে আভ্যন্তরীন ও দুর পাল্লার সড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। আকস্মিক সড়ক অবরোধের কারণে বেকায়দায় পড়েছে শত শত পর্যটক। অপ্রীতিকর ঘটনার শঙ্কায় নিরাপত্তা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৩ জানুয়ারি দুপুরে খাগড়াছড়ি শহরের স্লুইস গেইট এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে পাহাড়ি আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র  (ইউপিডিএফ) কেন্দ্রীয় নেতা মিঠুন চাকমা নিহত হয়েছে। ইউপিডিএফ এ হত্যাকাণ্ডের জন্য ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিককে দায়ী করে আসছে। খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক আব্দুল হান্নান জানান, এখনো থানায় মামলা করেনি।

উল্লেখ, প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ ১৯ বছর পর গেল বছরের ১৫ নভেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রভাবশালী পাহাড়ি আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ ভেঙ্গে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক নামে আরো একটি সংগঠনের আত্মপ্রকাশ ঘটে। বিভক্তির পর সংগঠনটির কোন নেতাকর্মী প্রথম হত্যাকাণ্ডের শিকার হলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *