খাগড়াছড়িতে আ’লীগের দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে দুই পুলিশ সদস্যসহ আহত-১৩


আধিপত্য নিয়ে ধারাবাহিক সংঘর্ষের জেরে খাগড়াছড়িতে আ’লীগের দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে দুই পুলিশ সদস্যসহ ১৩জন আহত, পুলিশের ফাঁকা গুলি, অতিক্তি পুলিশ সুপার লাঞ্চিত।

নিজস্ব  প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

আধিপত্য নিয়ে ধারাবাহিক সংঘর্ষের জেরে খাগড়াছড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে দুই পুলিশ সদস্যসহ ১৩জন আহত হয়েছে। লাঞ্চিত হয়েছে অতিক্তি পুলিশ সুপার এম এম সালাহউদ্দিন। সংঘর্ষের সময় উভয় গ্রুপকে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করতে দেখা গেছে। পুলিশ সংঘর্ষ থামাতে তিন রাউন্ড ফাকা গুলি ছুঁড়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে শহরে যানবাহন চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, খাগড়াছড়ি পৌর শ্রমিকলীগের সভাপতি বেলাল হোসেনের উপর হামলার প্রতিবাদে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপির অনুসারীরা মঙ্গলবার(৩১ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে কদমতলী এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি ছবিঘর সিনেমা হলের সামনে পৌঁছলে মেয়র রফিকুল আলমের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে আদালত সড়ক রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

এ সময় উভয় পক্ষ কিরিচ ও লাঠিসোটার পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্রও ব্যবহার করে। সংঘর্ষ চলাকালে আট রাউন্ড গুলির শব্দ শোনা গেছে। এ সময় এক পক্ষের হাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাহউদ্দিন লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনা ঘটে।পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। একটি ট্রাকের সামনে গ্লাসও ভাংচুর হয়। সংঘর্ষ নিয়ে উভয় গ্রুপ পরস্পরকে দায়ী করেছে।

খাগড়াছড়ি সহকারী পুলিশ সুপার হেডকোয়ার্টার আব্দুল আওয়াল জানান, শ্রমিক লীগ নেতা বেলাল হোসেনের উপর হামলার প্রতিবাদে বের হওয়া বিক্ষোভ মিছিলে মেয়র রফিকুল আলমের গ্রুপ হামলা চালালে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে তিন রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়েছে। তবে পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি।

খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী অভিযোগ করেন, তাদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে মেয়র রফিকুল আলমের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোঠান চৌধুরী ৫ নেতাকর্মীকে আহত করেছে।

অপর দিকে মেয়র রফিকুল আলম পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, গত কয়েক দিনে পুলিশের সহযোগিতা এমপি গ্রুপের সন্ত্রাসীরা শহরের বিভিন্ন স্থানে একাধিক তার সমর্থকদের বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়ে অন্তত ১০জনকে আহত করেছে। আজকেও পুলিশের উপস্থিতিতে এমপির গ্রুপের সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করে তার নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে পথচারীসহ ৬জনকে আহত করেছে।

প্রসঙ্গত, গত পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে খাগড়াছড়ি আওয়ামী লীগের বিভক্তির সৃষ্টি হয়। সে থেকে প্রতিনিয়ত দুই পক্ষের মধ্যে অন্তত অর্ধশতাধিক হামলা, পাল্টা হামলা ও সংঘর্ষে কমপক্ষে শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। এ সব ঘটনায় মামলা হয়েছে অর্ধশতাধিক। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল রাতে প্রতিপক্ষের হামলায় খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপির অনুসারী পৌর শ্রমিকলীগের সভাপতি বেলাল হোসেন গুরুতর আহত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *