কেমন ছিল নিক-প্রিয়ঙ্কার রূপকথার বিয়ে!


বিনোদন ডেস্ক:

অবশেষে সামনে এল প্রিয়ঙ্কা চোপড়া এবং নিক জোনাসের বিয়ের ছবি। গেল গ্রীষ্মে নিক জোনাস যখন প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে প্রেম নিবেদন করেন, তখনই তাঁরা বুঝে গিয়েছিলেন, ধর্ম, সংস্কার আর পরিবার মিলে-মিশে একাকার হয়ে যাবে তাঁদের। সেই থেকেই স্বপ্নের শুরু, রাজকন্যা ও রাজপুত্র সাজবেন দুজন। সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে দুই তারকার। আজ মঙ্গলবার বেরিয়েছে আলোচিত সেই বিয়ের কিছু ছবি। কেবল পিপল ডটকমকে দেওয়া সেই ছবি দেখেই বুঝে নেওয়া যায়, কী অসাধারণ ছিল তাঁদের বিয়ের আয়োজন।

শনিবার জোধপুরের উমেদ ভবনে প্রথম খ্রিস্টান মতে বিয়ে সারেন প্রিয়ঙ্কা-নিক। তাতে পাদরির ভূমিকা পালন করেন নিকের বাবা পল কেভিন জোনাস। আত্মীয়স্বজন এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধবের সামনে সেখানে একে অপরকে জীবনসঙ্গী হিসাবে গ্রহণ করেন দু’জনে।

 

ইনস্টাগ্রামে বিয়ের ছবি পোস্ট করে প্রিয়ঙ্কা লেখেন, ‘‘আমাদের চিরদিনের যাত্রা শুরু হল।’’ নিক লেখেন, ‘‘আমার জীবনের সবচেয়ে আনন্দের মুহূর্ত।’’

প্রিয়ঙ্কার বাবা অশোক চোপড়া প্রয়াত হয়েছেন। তাই মা মধু চোপড়াই মেয়েকে নিকের হাতে তুলে দেন। খ্রিস্টান বিয়েতে মেয়ের মতো তিনিও পশ্চিমী পোশাকই বেছে নেন।

শ্বেত-শুভ্র সাদা গাউনে প্রিয়ঙ্কা একাই অবশ্য উমেদ ভবন থেকে বেরিয়ে আসেন। সিঁড়ি দিয়ে কয়েক ধাপ নেমে এলে তাঁর হাত ধরেন মা মধু চোপড়া। তার পর সবুজ ঘাসের উপর দিয়ে বিবাহস্থলের দিকে এগিয়ে যান তাঁরা।

বিয়েতে প্রিয়ঙ্কা ও নিক দু’জনেই মার্কিন ডিজাইনার রাল্ফ লরেনের তৈরি পোশাক পরেছিলেন। এর আগে ওই সংস্থার পোশাকে রেড কার্পেটে ধরা দিয়েছেন বহু তারকাই। তবে এই প্রথম কোনও তারকার বিয়েতে পোশাক তৈরি করলেন তাঁরা।

সাদা রঙের লেস বসানো, ফুলহাতা গাউন পরেছিলেন প্রিয়ঙ্কা। তাঁর পিছনে শিফনের সাদা ভেইল বসানো ছিল। কিন্তু সেটা এতটাই লম্বা ছিল যে সামলাতে হাত লাগাতে হয় জনা কয়েক লোকজনকে।

প্রিয়ঙ্কার বিয়ে উপলক্ষে এক সপ্তাহ আগে থেকেই সেজে উঠতে শুরু করেছিল উমেদ ভবন। খ্রিস্টান মতে বিয়ের দিনও বিশেষভাবে সাজানো হয়েছিল গোটা প্রাসাদ। সাদা ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছিল বিবাহস্থল। অতিথিদের বসার চেয়ারেও সাদা ফুল বাঁধা ছিল। ছবি: টুইটার থেকে সংগৃহীত।

নিউজটি বিনোদন বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *