কুতুবদিয়ার পুকুর-ডোবায় জ্বীনের আস্তানা!


কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কুতুবদিয়ায় পুুকুর-ডোবাগুলোতে জ্বীনের উপদ্রপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এমন খবর এখন দ্বীপ জুড়ে চাউর হয়ে বেড়াচ্ছে।

গত দু’বছর ধরে উপজেলায় পুকুর বা পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর হার আশংকাজনক বৃদ্ধি পাওয়াতেই এমন খবর প্রচার হচ্ছে।

শিশু মৃত্যুর মূল কারণ হিসেবে অভিভাবকদের সচেতনার অভাবসহ পুকুর বা ডোবায় জ্বীনেরা আস্তানা গাড়ায় শিশু মৃত্যু ঘটছে বলে গুজব রটেছে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন ‘আজগুবি’ সংবাদ প্রকাশের পর এটি এখন ‘টক অব দ্য আইল্যান্ড’-এ পরিণত হয়েছে। যা হাস্যকরও বটে।

সংবাদের শিরোনামে ‘পুকুর বা ডোবায় পড়ে এক মাসে শতাধিক শিশুর মৃত্যু’ বলা হয়েছে। ভিতরে একজন জনপ্রতিনিধির বরাতে মাসে ১৫/২০ জন শিশু মৃত্যুর কথাও বলা হয়।

এ রিপোর্টটিতে উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, শিক্ষা কর্মকর্তা এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তার বক্তব্য রয়েছে।

কুতুবদিয়ায় অত্যাধিক হারে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যুর কারণ বলতে গিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ‘অভিভাবকদের সচেতনতার পাশাপাশি উপজেলায় বিভিন্ন পুুকুর বা ডোবায় জ্বীনের উপদ্রপ বেড়ে যাওয়ায় শিশু মৃত্যুর অন্যতম কারণ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। যা অভিজ্ঞ মহল ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন।

২০১৭ সালে হাসপাতাল ও বিভিন্ন সূত্র মতে, উপজেলায় ৮০ জন শিশু পানিতে ডুবে মারা যায়। আর চলতি বছরের মে-জুনে (৩১ দিনে) সর্বোচ্চ সংখ্যক ১৩ শিশুর মৃত্যু হয়।

মূলত জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকারি বা বেসরকারিভাবে কোন পদক্ষেপ না নেয়ার কারণেই উপজেলায় পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর এই হার বেড়েই চলেছে বলে মনে করেন অভিজ্ঞ মহল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *