কাউখালীর জয়নাল হত্যায় তিন খুনীর স্বীকারোক্তি, পঁচিশ হাজার টাকার জন্যই হত্যা



কাউখালী প্রতিনিধি:
রাঙামাটির কাউখালীতে গরু ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন হত্যার সাথে জড়িত ৪ মারমা যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে ৩ জন হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। বাকী একজনকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১৪ আগস্ট মঙ্গলবার রাত ৯টায় বেতবুনিয়ার চৌধুরী পাড়া ও কালাকাজি পাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে পুলিশ। কাউখালী থানার ওসি (তদন্ত) মো. সাখাওয়াত হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালিত হয়। আটককৃতদের মধ্যে দু’জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো, হত্যার নেতৃত্বদানকারী (১) বেতবুনিয়া কালাকাজি পাড়ার সুইচাপ্রু মারমার ছেলে উচিংমং মারমা (৩০), (২) তারই ছোট ভাই ম্রাইচা অং মারমা (২৫), (৩) বেতবুনিয়া চৌধুরীপাড়া এলাকার পাইচাপ্রু মারমার ছেলে চাইসিও মারমা মারমা (২৬) এবং (৪) মংচিং মারমা (২৭)। এদের মধ্যে প্রথম ৩ জন হত্যাকান্ডের সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করায় অপর সন্দেহভাজন মংচিংকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য ১১ আগস্ট নিখোঁজ হন বেতবুনিয়া ইউনিয়নের হেডম্যান পাড়া এলাকার বাসিন্দা মৃত দুলা মিয়ার পুত্র গরু ব্যবসায়ী মো. জয়নাল আবেদীন (৩৮)। নিখোঁজের একদিন পর ১২ আগস্ট বেলা ১২টায় উপজেলার বেতবুনিয়া ইউনিয়নের চৌধুরী পাড়া এলাকায় মাটিতে পুঁতে রাখা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ঐদিন খুন হওয়া জয়নালের পরিবার বাদী হয়ে কাউখালী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার চারদিনের মাথায় কাউখালী থানা পুলিশ হত্যার সাথে জড়িত ৩ জনকে ও সন্দেহভাজন একজনকে আটক করে।

কাউখালী থানার ওসি (তদন্ত) ও মামলার আয়ু মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১৪ আগস্ট রাত ৯টায় উপজেলার বেতবুনিয়া ইউনিয়নের চৌধুরী পাড়া অভিযান চালিয়ে তিনজন ও ১৫ আগস্ট কালাকাজি পাড়ায় অভিযান চালিয়ে একজনসহ ৪ জনকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে তিনজন সরাসরি হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করায় অপর সন্দেহভাজনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেয়া হয়। তিনি জানান, আটককৃতদের মধ্যে উচিমং মারমা ও চাইসিও মারমাকে বুধবার সকালে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ম্রাইচা মারমাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

পুলিশ জানায়, খুন হওয়া জয়নালকে ফোন করে গরু কেনার কথা বলে পঁচিশ হাজার টাকা নিয়ে পাহাড়ে ডেকে নিয়ে যায় উচিমং মারমা। পরে তার কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপি হত্যা করা মাটিতে পুঁতে রাখে। উমংএর সাথে হত্যায় অংশ নেয় তারই ছোট ভাই ম্রাইচা অং মারমা ও চাইসিও মারমা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *