কল্পনা চাকমা অপহরণের বিচার দাবিতে ঢাকায় প্রতিবাদ সমাবেশ


পার্বত্য নিউজ ডেস্ক:

কল্পনা চাকমা অপহরণের সঙ্গে জড়িত ও দোষীদের বিচার ও শাস্তির দাবিতে ঢাকার শাহবাগে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

শুক্রবার (৮ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চকমার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম, ইউনাটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর ঢাকা অঞ্চলের সংগঠক প্রতিম চাকমা, নারী সংহতির সাংগঠনিক সম্পাদক জান্নাতুল মরিয়ম, বিপ্লবী নারী ফোরামের আমেনা আক্তার, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি এম এম পারভেজ লেলিন, ছাত্র ঐক্য ফোরামের যুগ্ম আহ্বায়ক সরকার আল ইমরান, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিনয়ন চাকমা ও ল্যাম্পপোষ্টের সাধারণ সম্পাদক নাহিদ সুলতানা লিসা।

এছাড়া সংহতি জানান, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত, লেখক রেহনুমা আহমেদ, গবেষক সাইদিয়া গুলরুখ ও ফ্যাসিবাদ ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী জাতীয় কমিটির সদস্য রকিব পারভেজ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১৯৯৬ সালে কল্পনা অপরহরণের পর বহু প্রতিবাদ-বিক্ষোভ করেছি। কিন্তু কোন সরকার চিহ্নিত অপহরণকারীদের শাস্তি দেয়নি।

নারী সংহতির জান্নাতুল মরিয়ম বলেন, কল্পনা অপহরণ, তনু হত্যাসহ নারী নির্যাতনের বিচারের দাবিতে আমাদের অব্যাহতভাবে লড়তে হবে। মানুষের সামগ্রিক মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত এ লড়াই থামবে না।

বিপ্লবী নারী ফোরামের আমেনা আক্তার বলেন, কল্পনা চাকমার অপহরণের তদন্তের পরও সরকার কোন তথ্য পায় না। তিনি কল্পনা অপহরণের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিচার ও দোষীদের শাস্তি জানান। তিনি আরও বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে রাখা হয়েছে জনগণের নিরাপত্তার জন্য। কিন্তু লজ্জাকর বিষয় হল সরকার এদেরকে ভাড়াকরা গুণ্ডার মতো ব্যবহার করছে।

ছাত্র ঐক্য ফোরামের যুগ্ম আহ্বায়ক সরকার আল ইমরান বলেন, সরকার ২২ বছরে কল্পনা অপহরণের তদন্ত শেষ করতে পারছে না। এ ঘটনায় বিচারের নামে তামাশা চলছে। ২২ বছরেও কল্পনার কোন হদিশ পাবো না তা কোনভাবে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

প্রতিবাদ সমাবেশের বক্তারা আরও বলেন, শুধু কল্পনা অপহরণ নয়, পাহাড়ে সমতলে অব্যাহতভাবে নারী নির্যাতন চলছে। তিনি বলেন, জাতিগত দ্বন্দ্ব বিভিন্নভাবে উসকে দেয়া হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, শাসকগোষ্ঠী নিজেদের তৈরিকৃত আইনও মানছে না। তাদের আইনি প্রক্রিয়ার ওপর আস্থা রাখতে পারছে না বলেই ক্রসফায়ারের নামে বিনা বিচারে মানুষ হত্যা করছে।

সভাপতির বক্তব্যে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চাকমা বলেন, কল্পনা অপহরণের প্রতিবাদ করতে গিয়ে আমরা হারিয়েছি সমর-সুকেশ-রূপন-মনোতোষ চাকমাকে। তিনি বলেন, কল্পনা অপহরণের বিচার না হওয়ায় নারী নির্যাতকদের সাহস আরও বেড়েছে, ফলে বিলাইছড়ি দুই মারমা বোনকে ধর্ষণের মত ঘটনাসহ অহরহ ঘটনা ঘটছে। এমনকি চাকমা রাণীকে পর্যন্ত নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে।

কল্পনা অপহরণের বিচারের দাবির প্রতিবাদকে স্তব্ধ করে দেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, গত বছর ৭ জুন কল্পনা অপহরণের বিচারের দাবিতে খাগড়াছড়িতে নারী সমাবেশে হামলা চালানো হয়। তিনি বলেন, যতই ষড়যন্ত্র বাধা বিপত্তি সৃষ্টি করা হোক না কেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কল্পনা অপহরণের বিচারের দাবি থেকে সরানো যাবে না।

তিনি টালবাহানা না করে অবিলম্বে কল্পনা চাকমার চিহ্নিত অপহরণকারীদের গ্রেফতার-বিচার ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি রাজু ভাষ্কর্যে এসে শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *