কক্সবাজার-সোনাদিয়া নৌপথে যুক্ত হলো পর্যটক বাহী প্রথম জাহাজ


মহেশখালী প্রতিনিধি:

কক্সবাজার-মহেশখালী-সোনাদিয়া নৌ-পথ ভ্রমনে এবার যুক্ত হয়েছে এসটি সুকান্ত বাবু’ নামে একটি জাহাজ। পর্যটকরা এ জাহাজের মাধ্যমে জেলা শহর থেকে সমুদ্রপথে মহেশখালী ও সোনাদিয়া দ্বীপে ভ্রমন করতে পারবেন। গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে জাহাজটির পরীক্ষামূলক যাত্রা শুরু হয়েছে। মহেশখালী ও সোনাদিয়া দ্বীপ ঘিরে পর্যটন শিল্পের বিকাশে এ জাহাজকে নতুন মাত্র যোগ করেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

তবে পরিবেশবাদীরা মনে করছেন অহরহ পর্যটক প্রবেশ করলে সোনাদিয়ার জীববৈচিত্র হুমকির মুখে পড়বে। সেই দিকে লক্ষ্য রাখার আহ্বান জানান।

কক্সবাজার বিআইডব্লিটিএ ঘাটে বৃহস্পতিবার দুপুরে এ জাহাজের পরীক্ষামূলক যাত্রার উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান। এসময় তিনি বলেন, আগে সোনাদিয়া ও মহেশখালী দ্বীপে জাহাজে ভ্রমণ করতে পারত না পর্যটকরা। এখন পর্যটকরা স্বল্প খরচে সোনাদিয়া দ্বীপসহ কয়েকটি এলাকায় ভ্রমণ করবে। বর্তমানে সোনাদিয়া দ্বীপে স্পেশাল ইকো ট্যুরিজমের কাজ এগিয়ে চলছে। এটি বাস্তবায়িত হলে পর্যটকরা সেখানে যেতে চাইবে। সেজন্য এই জাহাজ বড় ধরনের ভূমিকা রাখবে। শুধু তাই নয়, পর্যটন শিল্পে এই জাহাজ ইতিহাস হয়ে থাকবে। কারণ এই প্রথম কোনো বড় জাহাজ সোনাদিয়া দ্বীপে যাচ্ছে। তাও আবার পর্যটক নিয়ে। এর মধ্যদিয়ে চলতি মৌসুমে পর্যটকদের জন্য বঙ্গোপসাগর ভ্রমণ আরও সহজ হল। তিনি মনে করেন, এ জাহাজের সাফল্য আসলে নতুনভাবে আলো ছড়াতে পারে পর্যটন শিল্পে।’

ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের চেয়ারম্যান কায়ছারুল হক জুয়েলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এসএম সরওয়ার কামাল, ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান, ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশনের (টুয়াক) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এম এ হাসিব বাদল, ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের মালিক হোসাইন ইসলাম বাহাদুর। এসময় চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টার এর স্টাফ রিপোর্টার মুহাম্মদ আলী জিন্নাত, কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-৩ শাহেনা আক্তার পাখি, কাউন্সিলর ইয়াছমিন আক্তার উপস্থিত ছিলেন। পরে অতিথিরা ওই জাহাজে করে সমুদ্র ভ্রমন করেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রতিদিন সকাল ৯টায় এই জাহাজ পর্যটক নিয়ে মহেশখালী ও সোনাদিয়া দ্বীপে যাবে। পাশাপাশি বঙ্গোপসাগরের কয়েকটি এলাকায় ভ্রমণ করবে। এসটি সুকান্ত বাবু জাহাজে দুইশ জন করে প্রতিদিন ভ্রমণ করতে পারবে। একটি প্যাকেজের আওতায় জাহাজে দুপুরের খাবার, বিকেলে নাস্তা ও লোকাল ডিজে পার্টির ব্যবস্থা থাকবে।

ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের মালিক হোসাইন ইসলাম বাদল বলেন, সেন্টমার্টিনের মতো পর্যটকরা এখন সোনাদিয়া দ্বীপে ভ্রমণ করতে পারবে। বেসরকারি উদ্যোগে এ জাহাজ চালু করেছি। আশা করি পর্যটকরা আমাদের ডাকে সাড়া দেবে।’

টুয়াকের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এম এ হাসিব বাদল বলেন, পর্যটন শিল্পে এটি ইতিহাস হয়ে থাকবে। কারণ এই প্রথম কোনো বড় জাহাজ সোনাদিয়া দ্বীপে যাচ্ছে। তাও আবার পর্যটক নিয়ে। চলতি মৌসুমে পর্যটকদের জন্য বঙ্গোপসাগর ভ্রমণ আরও সহজ হল।’

এসব ইকো ট্যুরিজম বাস্তবায়িত হচ্ছে। তাই এখন থেকে পর্যটকরা সোনাদিয়া দ্বীপে স্বল্প খরচে যেতে পারবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *