কক্সবাজার পৌরসভায় নির্বাচনী হাওয়া


 

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

আগামী জুলাই মাসে দেশের পাঁচটি সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে সেই সাথে কক্সবাজার পৌর নির্বাচন ও অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে সূত্র জানায়। নির্বাচনের এখনো তিন মাসের অধিক সময় বাকি থাকলেও সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নির্বাচনী বৈঠক ও সভা সমাবেশ চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা যায়, ২০১১ সালের ২৭ জানুয়ারী কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে ভোটারদের রায়ে সরওয়ার কামাল মেয়রসহ ৪ জন মহিলা ও ১২ জন পুরুষ কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়। একটি মহলের মামলার কারণে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরগণ দীর্ঘ আড়াই বছর যাবৎ শপথ নিতে পারেননি।

ওই মামলা খারিজ হলে ২০১৩ সালের জুলাই এর মাঝামাঝি সময়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিরা শপথ গ্রহণ করে। কয়েক বছর যেতে না যেতে রাজনৈতিক মামলার সুত্র ধরে নির্বাচিত মেয়র সরওয়ার কামালকে স্থানীয় সরকার কর্তৃক অব্যাহতি প্রদান করা হয়। এরপর বর্তমান পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে মাহবুবুর রহমান দায়িত্ব পালন করে আসছেন। আগামী জুলাই মাসে কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচনি মেয়াদ শেষ হবে। মেয়াদের তিন মাস আগেই নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার বিধান রয়েছে বলে জানা যায়।

আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীরা নির্বাচনি হাওয়া শুরু করে দিয়েছেন। অনেকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক ও জাতীয় দিবসকে কেন্দ্র করে ব্যানার-ফেস্টুনে নির্বাচনে প্রার্থীতা জানান দেন। পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে সরকারী দল তথা নৌকা প্রতীক নিয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান ও ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত মেয়র সরওয়ার কামাল এর নাম শোনা যাচ্ছে।

এছাড়াও সরকারী দলের পক্ষ থেকে চার বার নির্বাচিত পৌর চেয়ারম্যান নুরুল আবছার, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত মেয়র মাহবুবুর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম একেএম মোজাম্মেল হকের জৈষ্ঠ সন্তান মাশেদুল হক রাশেদ ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য রাশেদুল ইসলাম এবং ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক প্যানেল মেয়র জিসান উদ্দিন, ১৬ বছরের কাউন্সিলর দায়িত্ব পালনকারী জেলা যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামশেদ ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি অধ্যাপক আজিজুর রহমান এর নামও শোনা যাচ্ছে।

তবে শেষ পর্যন্ত কাদের ভাগ্যে স্ব স্ব দলীয় টিকেট শোভা পাচ্ছে দেখার অপেক্ষায় থাকতে হবে। ইতোমধ্যে সকলে নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন কৌশলী ভূমিকা পালনে ব্যস্ত সময় পার করছেন বলে সূত্র জানায়। শেষমেশ জুলাই মাসে নির্বাচন হচ্ছে কিনা অনেকের মাঝে তা নিয়েও রয়েছে সংশয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *