কক্সবাজার থেকে সোনাদিয়া নতুন নৌপথে জাহাজ চলাচল শুরু


নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার:

কক্সবাজার শহরের নুনিয়াছড়া বিআইডব্লিউটি’র ঘাট থেকে সোনাদিয়ায় নতুন নৌ-পথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) আনুষ্ঠানিকভাবে এই নৌপথে জাহাজ চলাচল উদ্বোধন করেন কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

টুয়াক সূত্র জানায়, ২৩ নভেম্বর শুক্রবার থেকে প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে নতুন নৌ-পথে জাহাজ চলবে। “এসটি শহীদ সুকান্ত বাবু” জাহাজ এই পথে চলবে। নতুন এই নৌপথে যাত্রীরা যাতে নিরাপদে জাহাজ থেকে তীরে ওঠানামা করতে পারে, সে জন্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় ‘এসটি সুকান্ত বাবু’ জাহাজ চলাচল উপলক্ষে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কক্সবাজার জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে আরও একটি পর্যটনের দ্বার উম্মোচন হয়েছে। যেটি প্রথম এই যাত্রা স্বপ্নের সোনাদিয়ায় জাহাজ চলাচল। দেশি-বিদেশি পর্যটকরা যাতে নিশ্চিন্তে চলাফেরা-দর্শনীয় স্থান দেখতে পারে সেজন্য এসটি সুকান্ত বাবু নামে জাহাজ চালু করায় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাই।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্যুরিষ্ট পুলিশ কক্সবাজারের পুলিশ সুপার জিল্লুর রহমান, জেলা আ. লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, টুয়াক এর ফাউন্ডার চেয়ারম্যান এমএ হাসিব বাদল, সাংবাদিক মো. আলী জিন্নাত, মহিলা কাউন্সিলর শাহেনা আক্তার পাখি, ইয়াছমিন আকতার, টুয়াক সহ-সভাপতি ও ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের সত্বাধিকারী হোসাইন ইসলাম বাহাদুর।

এসটি সুকান্ত বাবু’র পরিচালক মো. আবদুল্লাহ জানান, অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি সোনাদিয়ায় এই প্রথম জাহাজের যাত্রা। পর্যটকদের সুবিধার্থে জাহাজ কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। প্যাকেজ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১২০০ টাকা। এই প্যাকেজে খাবারসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

সংবাদকর্মী এইচএম নজরুল ইসলাম বলেন, সমুদ্র পথে সোনাদিয়া-মহেশখালী জাহাজ সুকান্ত দিয়ে যে শুভ সূচনা হয়েছে তা পর্যটকদের নতুন আনন্দের বার্তা দিবে। কারণ, সোনাদিয়া দ্বীপে পর্যটকদের প্রতি মুহূর্তের হাতছানি দিয়ে ডাকলেও যাতায়াত ব্যবস্থা ছিল না বললেই চলে। দীর্ঘদিন পর হলেও পর্যটন শিল্প প্রসারে বিশাল জাহাজ সুকান্তের যাত্রা শুরু করায় আয়োজকদের তিনি ধন্যবাদ জানান।

তিনি আরও বলেন, পর্যটন শিল্পের সম্ভাবনার নতুন দুয়ার খুলল। তবে পর্যটকদের নিরাপত্তার প্রয়োজনে ট্যুরিস্ট পুলিশের বিশেষ ক্যাম্প সোনাদিয়ায় প্রয়োজন রয়েছে। একই সাথে সোনাদিয়া দ্বীপের জীববৈচিত্র রক্ষায় পর্যটক ব্যবসায়ীদের বিশেষ নজর রাখতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *