কক্সবাজারে মুক্তিপন আদায়ের ঘটনায় ডিবি পুলিশ পরিদর্শক সহ ৭জন আটক


 

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের টেকনাফে আব্দুল গফুর নামে এক ব্যবসায়ীকে জিম্মি করে ১৭ লাখ টাকা আদায়ের ঘটনায় সেনাবাহিনীর হাতে আটক হয়েছে ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) সহ ৭জন।

এসময় ডিবি পুলিশের এক এসআই পালিয়ে গেলেও উদ্ধার করা হয়েছে ওই ১৭ লাখ টাকা। নানা প্রক্রিয়া শেষে উদ্ধার ১৭ লাখ টাকা ব্যবসায়ীকে ফেরত দিয়ে আটক ৭জনকে কক্সবাজারের পুলিশ সুপারকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

টেকনাফে রোহিঙ্গাদের ত্রাণ কর্যক্রম পরিচালনায় স্থাপিত সেনাবাহিনীর ক্যাম্পের প্রধান মেজর নাজিম আহমদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, টেকনাফের মধ্যে জালিয়া পাড়ার মৃত হোসেন আহমদের পুত্র আবদুল গফুরকে মঙ্গলবার দুপুরে কক্সবাজার শহর থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ধরে নিয়ে গিয়ে টাকা দাবি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তার পরিবারের সদস্যরা। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আগে টাকা প্রদান করে ওই ব্যবসায়ীকে ছাড়িয়ে নেয়া হয়। টাকা নিয়ে একটি মাইক্রোবাস যোগে ৮জনের একটি দল বুধবার ভোরে কক্সবাজারের দিকে যাচ্ছিল।

এ সময় মেরিনড্রাইভ সড়কের শাপলাপুর এলাকায় সেনাবাহিনী তল্লাশি চৌকিতে মাইক্রোবাসটি তল্লাশি করে উদ্ধার করা হয় ওই ১৭ লাখ টাকা। ওই সময় ডিবি পুলিশের এসআই মনিরুজ্জামান দৌঁড়ে পালিয়ে গেলেও ডিবি পুলিশের অপর ৭জনকে আটক করা হয়। পরে বিষয়টি নিয়ে র‌্যাব, পুলিশের সাথে আলোচনা করা হয়। আটক ৭জনকে পুলিশ সুপারের জিম্মায় প্রদান করে ১৭ লাখ টাকা ওই ব্যবসায়ীকে ফেরত দেয়া হয়েছে।

সেনাবাহিনীর দেয়া তথ্য মতে, আটকদের মধ্যে রয়েছেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক তদন্ত ইয়াসিন আরাফাত, এসআই আবুল কালাম আজাদ, গোলাম মোস্তফা, ফিরোজ আহমদ, এএসআই নুরুজামান, সিপাহী মোস্তফা আলম ও গাড়ি চালক।

এদিকে গত ৩ মাস ধরে ডিবি পুলিশের এ দলটি বিভিন্ন ব্যক্তিকে জিম্মি করে লাখ-লাখ টাকা আদায়, মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়া সহ নানা অভিযোগ ছিল। এবার একই অভিযোগে সেনাবাহিনীর হাতে ধরা পড়ল দলটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *