উচ্চ আদালতের নির্দেশনা বাস্তাবায়ন করলে কক্সবাজারের পাহাড়গুলো সংরক্ষণ করা যাবে


কক্সবাজার প্রতিনিধি:
উচ্চ আদালতের নির্দেশনা ও রায় সংশ্লিস্ট প্রশাসন বাস্তাবায়ন করলে কক্সবাজারে পাহাড়গুলো সংরক্ষণ সম্ভব হবে। বন্ধ হয়ে যাবে কাটাও। এর জন্য স্থানীয় লোকজন প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের চাপ প্রয়োগ করতে হবে। এতেই কক্সবাজারের পরিবেশ-প্রতিবেশ রক্ষা পাবে। ২৩ এপ্রিল সোমবার কক্সবাজার শহরের অভিযাত এক হোটেলের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা) আয়োজিত ‘কক্সবাজারের পাহাড় সংরক্ষণে আদালতের নির্দেশনা ও রায় বাস্তবায়নে কমিউনিটি কনসালটেশন সভায়’ বক্তারা এ কথাগুলো বলেন।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সবাজারের সভাপতি ফজলুল কাদের চৌধুরীর সভাপতিত্বে বেলা’র নেটওয়ার্ক মেম্বার ও ইয়েস কক্সবাজারের প্রধান নির্বাহী ইব্রাহিম খলিল মামুনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ সভায় দৈনিক বাকঁখালীর সম্পাদক ও প্রকাশক সাইফুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বিষয় নির্ধারণ করে পরিবেশ নিয়ে যারা কাজ করে সবাইকে এক হয়ে নতুন করে কাজ শুরু করতে হবে। যাতে কক্সবাজারের পরিবেশ সংরক্ষণে দ্রুত সফলতা পাওয়া যায়।

প্রকৌশলী কানন পাল বলেন, কক্সবাজারে পাহাড় সংরক্ষণে উচ্চ আদালতের দেয়া নির্দেশনা ও রায় গুলোর সারসংক্ষেপ তৈরী করে প্রচারণা চালাতে হবে। আদালতের এসব বিষয়গুলো সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোকজনকে জানাতে হবে। প্রয়োজনে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের চাপ প্রয়োগ করতে হবে। এ ছাড়া কক্সবাজারে বিশাল পাহাড় কেটে গড়ে উঠা সরকারী কর্মচারিদের আবাসন প্রকল্প অর্থাৎ কথিত ৫১ একরে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী সব স্থাপনা উচ্ছেদ করে ওই জায়গাতে সিটি পার্ক স্থাপনের জন্য আন্দোলন করতে হবে।

এনজিও সংস্থা কোস্ট কক্সবাজারের সহকারী পরিচালক মকবুল আহমেদ বলেন, পাহাড় সংরক্ষণে আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়ন কিভাবে করা যায় তার একটা পরিকল্পনা করে নিয়মিত এর ফলোআপ থাকতে হবে। উচ্চ আদালতের নির্দেশনাগুলোর তালিকা তৈরী করে বিষয়গুলো নিয়ে প্রশানের সাথে মতবিনিময় করতে হবে। না হয় বিচ্ছিন্ন ভাবে চিৎকার দিলে আদালতের রায় বাসতাবয়ন হবেনা।

চ্যানেল আই এর কক্সবাজারের স্টাফ রিপোর্টার সরওয়ার আজম মানিক বলেন, কক্সবাজারে পাহাড় সংরক্ষণে উচ্চ আদালতের দেয়া নির্দেশনা ও রায়গুলো নিয়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করতে হবে। এ মতবিনিময়টি নিয়মিত করতে পারলে কক্সবাজারে পরিবেশ সংরক্ষণে বড় ধরণের সফলতা আসবে।

সভায় বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজারের সিনিয়র সাংবাদিক মমতাজ উদ্দিন বাহারী, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হেলেনাজ তাহেরা, বাংলা ভিশনের কক্সবাজারস্থ স্টাফ রিপোর্টার মোর্শেদুর রহমান খোকন, তেল,গ্যাস,খনিজ ও বন্দর রক্ষা কমিটির কক্সবাজারের সদস্য সচিব করিম উল্লাহ, পরিবেশ সংগঠক ও সমাজসেবক নাজিম উদ্দিন, কক্সবাজার নারী সংজ্ঞ সমিতির সভাপতি ফাতেমা আজফিহ ডেজি, শিক্ষক বুলবুলে জান্নাত, পরিবেশ সংগঠক আমিরুল ইসলাম রাশেদ, মহিলা লীগ নেত্রী ছালেহা আক্তার আখি প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *