উখিয়া টেকনাফের নতুন রোহিঙ্গা বস্তি দালালদের নিয়ন্ত্রণে


নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:
উখিয়া টেকনাফে একের পর এক রোহিঙ্গা বস্তি গড়ে উঠার পরও আবারো উখিয়া টেকনাফ সড়কের হোয়াইক্যং কেরুনতলী এলাকায় ২০০৩-০৪ সালের সামাজিক বনায়নের বাগান কেটে বস্তি গড়ে তোলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে একটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট। উক্ত সিন্ডিকেট ইতিমধ্যে নতুন আসা রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন প্রলোভনে ফেলে কেরুনতলী বস্তিতে জড়ো করছে। এতে সামাজিক বনায়নের উপকার ভোগীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করতে দেখা গেছে।

জানা যায়, মিয়ানমার থেকে নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের নিয়ে  বাণিজ্য চলছে সীমান্তবর্তী উখিয়া টেকনাফে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি নতুন রোহিঙ্গা বস্তি গড়ে উঠেছে। তারপরও থেমে নেই বস্তি নির্মাণের অপতৎরতা। এরই অংশ হিসেবে কক্সবাজার টেকনাফ সড়কের হোয়াইক্যং কেরুনতলী এলাকার চাকমারকুল ২০০৩-০৪ সালের সামাজিক বাগান উজাড় করে রোহিঙ্গা বস্তি নির্মানের পাঁয়তারা চালাচ্ছে স্থানীয় প্রভাবশালী ইমানু, মো. শফি, জহির হেডম্যান, আকতার হোসেন, বলি কাসিম, আনোয়ার মিয়া, ছাবের মিয়া, নুর আলম ও জালাল আহামদের নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট বাগান ধ্বংস করে বস্তি নির্মাণের পাঁয়তারা।

ইতিমধ্যে কিছু বাগানের গাছ নিধন করে রোহিঙ্গাদের বসানো হয়েছে। এতে সামাজিক বনায়নের সুবিধাভোগীদের মধ্যে অসন্তোষ ও আতংক বিরাজ করেছে। এ ব্যাপারে সামাজিক বনায়নের সভাপতি নুরুল ইসলাম জেলা প্রশাসক, কক্সবাজার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছে।

কেরুনতলীর সামাজিক বনায়নে রোহিঙ্গা বস্তি নির্মাণের ব্যাপারে জানতে চাইলে হোয়াইক্যং রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইব্রাহিম জানান, বস্তি নির্মাণকারীরা কোন কথাই মানছে না। তারা কারো বাধা মানছে না। বিষয়টি উধ্বর্তন কতৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *