উখিয়ায় হাসপাতালে নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ


উখিয়া প্রতিনিধি:

উখিয়ার কোটবাজারে একটি প্রাইভেট হাসপাতাল নার্সের কর্তব্য অবহেলায় নবজাতক শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার (২২ডিসেম্বর) সকালে পরিবারের সদস্যরা প্রচণ্ড বাদ প্রতিবাদের ঘটনা ঘটায় ক্লিনিকে। হাসপাতালের গাইনী বিভাগের ডাক্তার নাঈমা ইসলাম মিরা জানান, নবজাতক শিশুটি জন্মের কয়েকঘন্টা আগে মারা যায়। এতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কিংবা নার্সের কোন দায়িত্বের ত্রুটি ও অবহেলা ছিল না।

জানা যায়, উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের মধ্যম হলদিয়াপালং গ্রামের দুবাই প্রবাসী কামাল হোসনের গর্ভবতী স্ত্রী বেবি আক্তার (২৬) কে গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কোটবাজার অরজিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গর্ভবতীর ভাই সেলিম অভিযোগ করে বলেন, ব্যাথা শুরু হলে আমার বোনকে হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তার ডেলিভারি করার জন্য ভর্তি দেয়। ওই দিন রাত সাড়ে ৩টার দিকে তাজিনা নামক একজন অদক্ষ নার্স দিয়ে ডেলিভারি করায়। পরে আমরা জানতে পারি প্রসব হওয়া সন্তানটি মারা গেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেন, প্রসুতি মার স্বাভাবিক অর্থাৎ নরমাল ডেলিভারি হয়েছিল। নবজাতকের অবস্থা অস্বাভাবিক দেখা দিলে কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষনিক ফোন করলে বাসা থেকে রাতেই গাইনী বিভাগের ডাক্তার নাঈমা ইসলাম মিরা হাসপাতালে ছুটে আসে। কিন্তু তিনি আসার আগেই দুভার্গ্য বশত নবজাতক শিশু মারা যায়।

প্রসুতির চাচা ইসকান্দর হোসেন চৌধুরী জানান, গাইনী বিভাগের ডাক্তার বিহীন অদক্ষ নার্স দিয়ে ডেলিভারি করা, দায়িত্ব অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার কারণে নবজাতক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ মৃত্যুর জন্য হাসপাতাল কর্তৃকপক্ষ দায়ী। হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ইউনুছ বলেন, আমরা সাধ্যমত চেষ্টা করেছি। ডেলিভারিতে আমাদের দায়িত্বের কোন অবহেলা ছিল না। তার পরও অনাকাঙ্খিত মৃত্যুর জন্য আমরাও শোকাহত।

এদিকে অসুস্থ প্রসুতি মা বেবি আক্তার এখনো হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ভুল চিকিৎসার প্রতিকার চেয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *