উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন কার্যক্রম পরিদর্শনে সেনা প্রধান


 

উখিয়া প্রতিনিধি:

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক। বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ায় কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্পে চলমান কার্যক্রমের অগ্রগতি দেখতে তিনি পরিদর্শনে আসেন।

পরিদর্শনকালে পার্সপোট অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাসুদ রিদুয়ান জানান, মিয়ানমার হতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করতে ৩০টি বুথ খোলা হয়েছে। আরো ২০টি বুথ অচিরেই চালু করা হবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, নিবন্ধনের কার্যক্রম শেষ করতে ৩/৪ মাস লাগতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত ১১ সেপ্টেম্বর থেকে রোহিঙ্গাদের বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়। জেলা প্রশাসনের সঙ্গে নিবন্ধন কার্যক্রম করছে বাস্তবায়ন করছে আর্ন্তজাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) ও পাসর্পোট অধিদপ্তর। এই প্রকল্পের ডেপুটি পরিচালক লে. কর্নেল শফিউল আলম জানান, নিবন্ধনের সময় প্রত্যেকের দশ আঙ্গুলের চাপ, ছবি, বাংলাদেশে প্রবেশের সময় এবং মিয়ানমারে তাদের ঠিকানা লিপিবদ্ধ করা হবে। দেওয়া হবে পরিচয় পত্র।

বৃহস্পতিবার বিকেলে কুতুপালং ক্যাম্পে ২০টি বুথে রোহিঙ্গাদের নিবন্ধন কাজ চলতে দেখা গেছে। আঙ্গুলের ছাপ, ছবি তোলা ও তথ্য সংরক্ষণ করতে একেকজন রোহিঙ্গার জন্য গড়ে তিন থেকে চার মিনিট সময় প্রয়োজন। ধীরগতির কারণেও নিবন্ধনে আগ্রহ হারাচ্ছে রোহিঙ্গারা।

বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন কার্যক্রম পরিদর্শন কালে সেনাবাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, আর্ন্তজাতিক অভিবাসন সংস্থার কান্ট্রি ডাইরেক্টরসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত ১০ দিনে প্রায় ৫ হাজারের অধিক রোহিঙ্গাদেরকে বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করা হয়েছে বলে দায়িত্বরত প্রকল্প সমন্বয়কারী জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *