উখিয়ায় বিদ্যালয়ের গাছ গোপনে বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক


উখিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের উখিয়ার উত্তর পুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্বে অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

কাউকে না জানিয়ে অর্ধশতবর্ষী মাদার ট্রি করই প্রজাতির গাছ কর্তন করে গোপনে বিক্রি করে দিয়েছে এমন অভিযোগ করেছেন খোদ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি সহ সচেতন অভিভাবকগন।

জানা যায়, উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের উত্তর পুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে অর্ধশতবর্ষী করই গাছ শিক্ষার্থীদেরকে ছায়া দিয়ে আসছিল। অভিযোগে উঠেছে, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দিন বিনা অনুমতিতে কাউকে না জানিয়ে গোপনে কর্তন করে বিক্রয় করে দিয়েছে। এ নিয়ে পরিচালনা কমিটি ও সচেতন অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যালয়ের কোন সম্পদ বিক্রয় কিংবা হস্তান্তর করতে হলে পরিচালনা কমিটির সিন্ধান্ত এবং যথাযত কতৃপক্ষকে অবহিত করতে হয়।

বিদ্যালয়ের অভিভাবক সিরাজুল কবির, কামাল উদ্দিন, সাবের আহমদ ও গফুর উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দিন ক্ষমতার অপব্যবহার করে নিজের ইচ্ছামত সব কিছু করে যাচ্ছে। কাউকে না জানিয়ে বিদ্যালয়ের অর্ধশতবর্ষী একটি বড় মাদারট্রি কর্তন করে বিক্রি করে দিয়েছে তিনি। অথচ কোন কাজ করার পূর্বে কমিটির অনুমতি প্রয়োজন রয়েছে। এভাবে প্রধান শিক্ষক সব কিছুর ক্ষেত্রে নানা অনিয়ম ও দূর্নীতি করে যাচ্ছে।

এদিকে, অভিভাবকগন অভিযোগ করে বলেন, প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দিন স্থানীয় হওয়ায় কাউকে তোয়াক্কা করছে না । গোপনে গাছ বিক্রি থেকে শুরু করে নিজের ইচ্ছামত দায়িত্ব পালন নিয়ে অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এমনকি তিনি কক্সবাজার শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে অবস্থান করে থাকে এবং নিয়মিত বিদ্যালয়ে না আসে ফাঁকি দেয়।

এটাও শোনা গেছে, শিক্ষা অফিস কেন্দ্রীক বিভিন্ন তকবির ও দালালী কাজে ব্যস্ত থাকে। এ প্রসঙ্গে জানার জন্য একাধিকবার চেষ্টা করেও মোবাইল ফোন সংযোগ না পাওয়ায় প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

প্রধান শিক্ষক কর্তৃক গোপনে গাছ বিক্রির বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে পরিচালনা কমিটির গফুর উদ্দিনসহ অভিভাবকগন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করছে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *