আলীকদমে বৃষ্টিতে ধুয়ে গেল কার্পেটিং


নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

টানা তিনদিনের বৃষ্টিতে ধুয়ে গেল রাস্তার কার্পেটিং। গত সপ্তাহে বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা পরিষদের সড়ক মেরামতের এই কাজটি শেষ করা হয়। নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহার ও কার্পেটিং এর উচ্চতা কম দেয়ার অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

সূত্র জানায়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) আলীকদম উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন রাস্তার দুই হাজার মিটার মেরামতের ২৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কাজটি পায় বান্দরবানের কে-হোসাইন অ্যান্ড কোং ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষে মেরামতের কাজটি করেন আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির উদ্দিন ও বিএনপি নেতা আবু বক্কর।

স্থানীয় সচেতন মহলের দাবি, ঠিকাদারের সাথে আলীকদম উপজেলা প্রকৌশলীর যোগসাজসে নিম্নমানের বিটুমিন ও কম উচ্চতায় কাপের্টিং কাজ করার জন্য দুই হাজার মিটার কাজের অধিকাংশ কার্পেটিং বৃষ্টির পানিতে ধুয়ে গেছে। কাজ চলাকালে প্রকৌশলী বিভাগের কোন কর্মচারী পর্যন্ত উপস্থিত ছিলনা বলে অভিযোগ উঠেছে।

অফিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ‘ট্যাক কোট’ না করে কার্পেটিংয়ে ১২ মিলিমিটার প্রলেপ দেওয়ার কথা থাকলেও সেখানে মাত্র ৩ থেকে ৫ মিলিমিটার প্রলেপ দিয়েই কাজ শেষ করছে। এ কারণে বৃষ্টির পানিতে উঠে গেছে অধিকাংশ কার্পেটিং।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা নাছির উদ্দিন দলীয় প্রভাব খাটিয়ে উপজেলা প্রকৌশলীর সহযোগিতায় কার্পেটিংয়ের কাজটি করেছে। নিম্নমানের বিটুমিন ও কার্পেটিং এ উচ্চতা কম পাথর ব্যবহার করায় বৃষ্টিতেই রাস্তার কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে।

কার্পেটিং এ উচ্চতা কম পাথর ও নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহারের কথা অস্বীকার করেন ঠিকাদার স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা নাছির উদ্দিন।

উপজেলা প্রকৌশলী শান্তু ঘোষ বলেন, বৃষ্টির কারণে রাস্তার কার্পেটিং উঠে গেছে। তবে নিম্নমানের বিটুমিন বা অন্যান্য নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কথা অস্বীকার করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *