আবারও সাজেকের মাচালং বাজার বয়কটের ডাক


sajek-bazar

পার্বত্যনিউজ রিপোর্ট:

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা সাজেকের মাচালং বাজার বয়কটের ডাক দিয়েছে সাজেকের আধিপত্যে থাকা আঞ্চলিক সশস্ত্র সংগঠন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই সাজেক এলাকায় আধিপত্যে থাকা এ সশস্ত্র সংগঠনটি মাচালং বাজার বয়কটের চাপ দিচ্ছে বলে জানা যায়।

স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, শুক্রবার মাচালং বাজারে হাটের দিন থাকে, বৃহস্পতিবার মাচালং বাজারে সাজেকের দূরদূরান্ত থেকে লোকজন আসে এবং হাটের দিনের মতো লোক সমাগম হয় কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে হঠাৎ করে লোকজনকে বাজারে আসতে দিচ্ছে না এমনকি গাড়িতে করে লোকজন আসতে চাইলে তাদেরকে গাড়ি থেকে নামিয়ে রাখা হচ্ছে এখন পর্যন্ত লোকজন বাজারে আসতে পারছে না বলেও জানায় সূত্রটি।

এ বিষয়ে বাঘাইহাট জীপ সমিতির লোকজনের সাথে যোগাযোগ করলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা বলেন, আমরা রাস্তায় গাড়ী চালাই, এ বিষয়ে মন্তব্য করলে আমাদেরকে সমস্যায় পড়তে হয়। তবে আমাদের সমিতির গাড়ীগুলো বৃহ্স্পতিবার ও শুক্রবার মাচালং বাজারে হাট বসে। সে উদ্দেশ্যে সাজেকের বিভিন্ন এলাকায় গাড়িগুলো যায় লোকজন আনতে, তবে আজকে আমাদের গাড়িগুলো খালি ফেরৎ আসে।

মাচালং বাজারের উপজাতীয় এক ব্যাবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, আমরা ব্যবসায়ীরা সবাই একপ্রকার জিম্মী। আমাদের স্বাধীনতা বলতে কিছুই নেই, আমরা চাঁদা দিয়েও শান্তিতে ব্যবসা করতে পারছি না। কয়েক দিন পরপর একটা না একটা সমস্যার সৃষ্টি হয়, হঠাৎ করে কী জন্য এ বয়কট বুঝতে পারছি না। এখন আমাদের ব্যবসা গুটিয়ে চলে যাওয়া ছাড়া আর কিছু করার নেই।

এ বিষয়ে নিরাপত্তা বাহিনী সূত্র জানায়, আমরাও সকাল থেকে মাচালং বাজার বয়কটের বিষয়টি শুনেছি এবং বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজনকে বাজারে আসতে আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ’ বাধা দিচ্ছে বলেও খবর পাওয়া যাচ্ছে, তবে যেসব এলাকায় বাধা দেওয়া হচ্ছে সেখানে আমরা নিরাপত্তা বাহিনীর টহল জোরদার করেছি।

উল্লেখ্য উপজাতী সন্ত্রাসীদের চাপে বয়কট থাকা সাজেকের বাঘাইহাট বাজারটি দীর্ঘ ছয় বছর অচল থাকার পর ২০১৬ সালের ২৩ অক্টোবর স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বাজার কমিটির যৌথ উদ্যোগে পুনরায় চালু করা হয়।

এর মাঝেই সাজেকের এই বাজারটি আবারও বয়কট করা হলে জনগণকে তীব্র ভোগান্তি পোহাতে হবে। তাছাড়া নতুন করে বাজার বয়কটের ফলে সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *