অপূর্ব নাইক্ষ্যংছড়ির উপবন লেক



নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা সদরে পাহাড়ের বুকে কৃত্রিম হ্রদ আর ঝুলন্ত সেতু ঘিরে তৈরি হওয়া উপবন পর্যটন লেকে পর্যটকের আগমন বৃদ্ধি পেয়েছে। নানা কারণে বিগত সময়ে এখানে পর্যটনে মন্দাভাব থাকলেও এবার তা নেই।

পর্যটন এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিরোধপূর্ণ সীমানা নিয়ন্ত্রণ, পিকনিট স্পট এবং পর্যটক আকর্ষণে বনের মাঝে গড়ে তোলা হয়েছে আকাশ বাড়ি, চড়ুইভাতির ছোট্ট বেশ কয়েকটি ঘর। চারদিক সবুজ অরণ্য ঘেঁষে পাহাড় চূড়ার উপর প্রাকৃতিক হ্রদের এমন দৃষ্টিনন্দন রূপ যে কোন সৌন্দর্য পিপাসু মানুষকে মুগ্ধ করবে।

স্থানীয়রা জানান, নব্বই দশকের দিকে উপজেলা সদরে পানীয় জলের সমস্যা সমাধানে দুই পাহাড়ের মাঝখানে উপবন প্রাকৃতিক হ্রদটি গড়ে তোলা হয়েছিল। ১৯৯১ সালের মার্চে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে কৃত্রিম এ হ্রদের উদ্বোধন করেন তৎকালীন যোগাযোগ মন্ত্রী অলি আহমদ।

এর পর ১৯৯৪ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর বান্দরবান জেলা প্রশাসক আবদুল হক মূল পর্যটন কেন্দ্রের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।বিগত কয়েক বৎসর উপবন লেকটি উন্নয়ন বঞ্চিত থাকলেও বর্তমানে লেকে পর্যটকদের জন্য অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে।এতে করে প্রতিদিন দূর দূরান্ত থেকে পর্যটকরা ভ্রমণে ও বিনোদনের জন্য আসছেন, যেতে পারেন আপনিও।

 

সূত্র: পাক্ষিক পার্বত্যনিউজ, বর্ষ ১, সংখ্যা ২ ও ৩।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *