অজ্ঞাত রোগের ভয়ে মাদ্রাসায় যায়নি শিক্ষার্থীরা: তদন্ত কমিটি গঠন


Ramgarh pic 30.8.16 (1)

রামগড় প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার রামগড়ে বুধবার গণিয়াতুল উলুম সিনিয়র মাদ্রাসায় আকস্মিকভাবে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত ৩৫ জন ছাত্রী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি ফিরে গেছে। তবে তাদের শারীরিক দূর্বলতা এখনো কাটেনি বলে জানিয়েছে স্বজনরা। এদিকে চিকিৎসকরা অসুস্থ হওয়ার কারণ হিসাবে ‘গণ মনস্তাত্বিক রোগ’ বলে ধারণা করলেও এ ব্যাপারে আরও  অধিকতর নিশ্চিত হতে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অন্যদিকে, আতংকিত ছাত্রছাত্রীরা বৃহষ্পতিবার মাদ্রাসায় ক্লাস করতে যায় নি বলেও জানাগেছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, হাসপাতালে  ভর্তি হওয়া ৩৫ জন ছাত্রীর মধ্যে ২৮ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বুধবার রাতেই তাদের বাড়ি ফিরে গেছে। বৃহষ্পতিবার সকালে অবশিষ্ট সাত ছাত্রী হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি ফিরে যায়।

এ ব্যাপারে রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডাক্তার তারেক নিজামী জানান, অসুস্থ হয়ে পড়া সব ছাত্রীই এখন সম্পূর্ন সুস্থ। তাদের ভয়ের কোন কারণ নেই। তিনি বলেন, ষষ্ঠ শ্রেণীর একজন ছাত্রী সকাল ১১টার দিকে ক্লাসে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যাওয়ার কথা অন্যান্য ছাত্রীরা শুনার পর তাদের মনেও এক রকম ভয় ও আতংকের সৃষ্টি হয়। এ থেকে দেখা দেয় মানসিক দু:শ্চিন্তা। এতে তারা আক্রান্ত হয় মনস্তাত্বিক রোগে। গণহারে আক্রান্ত হয় বিধায় চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় একে ‘গণ মনস্তাত্বিক রোগ’ বলা হয়। তিনি আরও বলেন, আক্রান্তদের কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে মানসিক দু:শ্চিন্তা দূর করাতে হবে।

এদিকে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরা ছাত্রীদের বেশ কয়েকজন অভিভাবকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সুস্থ হলেও এখনও শারিরীক দুর্বলতা কাটেনি তাদের। রামগড় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের জানান, অসুস্থ হয়ে পড়া তাঁর স্ত্রীর ছোট বোনকে বুধবার রাতেই হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে  বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়। তার এখনও শারিরীক দুর্বলতা কাটেনি। এখনও তার মনে কিছুটা ভয়  রয়ে গেছে।

 আকস্মিকভাবে গণহারে ছাত্রীরা  অসুস্থ  হওয়ার প্রকৃত কারণ উদঘাটনে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ইকবাল হোসেনের নির্দেশে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ডাক্তার রতন খীসাকে প্রধান করে তিন সদস্যের এ কমিটি গঠন করা হয়।

এদিকে, বুধবার আকস্মিকভাবে ছাত্রীরা গণ হারে অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনায়  ভীতসন্ত্রস্ত ছাত্রছাত্রীরা বৃহষ্পতিবার মাদ্রাসায় যায়নি। তবে সহকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম মিয়াজী জানান, প্রায় ৬শ ছাত্রছাত্রীর মধ্যে বৃহষ্পতিবার বিভিন্ন ক্লাসের মাত্র ২০-২২জন মাদ্রাসায় আসে। ফলে তাদের ছুটি ‍দিয়ে দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *